জাতীয়

ঢাকা অবরোধের হুমকি দিলেন মান্না

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার সময় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার গাড়ি ভাঙচুর ও হামলা চালানো হয়। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আগামী সাত দিনের
মধ্যে কোনো ব্যবস্থা না নিলে ঢাকা মহানগরের সব জায়গায়

অবরোধ করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তিনি। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘মাহমুদুর রহমান মান্নার ওপর হামলার প্রতিবাদে’ নাগরিক ঐক্যের আয়োজনে এক
বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমার ওপর যারা হামলা করেছে তাদের ভিডিও আমার কাছে আছে। তৈমুর আলম খন্দকার (খালেদা

জিয়ার উপদেষ্টা) তাদের নামে জিডি করেছেন। সাত দিনের মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। যদি না নেয়া হয়… সাত দিন,
১৫ দিন পরে ঢাকা মহানগরের সব জায়গায় অবরোধ করব। এইরকম মনে করবেন না যে এক মাঘে শীত যাবে। এরকম মনে করবেন না যে চুরি করে রক্ষা পাবেন। ১০ বছরে একদিন তো সভা হবে, সেই দিন চলে এসেছে। তিনি বলেন, আমাদেরকে

রামদার ভয় দেখাবেন না। জেলের ভয় দেখাবেন না। মামলার ভয়
দেখাবেন না। পান্তা ভাতের মধ্যে কাঁচা মরিচ দিয়ে যেভাবে খাই, ওইভাবে হামলা-মামলা এত বছর ধরে খেয়ে এসেছি। আমরা যখন ধরব তখন কিন্তু পালাবার পথ পাবেন না। মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জোনায়েদ সাকী, নুরুল হক নুর সবাই কথা বলছেন, কারোর কণ্ঠরোধ করতে পারেননি। আর কণ্ঠরোধ করতেও পারবেন না। আজ আমরা তিনজন, চারজন কথা বলছি, সাত দিন পরে সারা বাংলাদেশের মানুষ একসঙ্গে

কথা বলবে। ওই কণ্ঠ এত জোরে শোনা যাবে যে, গণভবনের দেয়াল ভেঙে পড়ে যাবে। এ সরকার ‘জাত-ডাকাত’ মন্তব্য করে ডাকসুর সাবেক এই ভিপি বলেন, এরা কতো বড় ডাকাত পৌরসভা নির্বাচনেও তারা ভোট ডাকাতি করেছে। এরা আসলেই জাত ভোটডাকাত। বিক্ষোভ সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর প্রমুখ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close